Monday, July 22, 2024
- Advertisment -spot_img

প্রবল বৃষ্টির ফলে ঝাড়গ্রামের বিস্তীর্ণ এলাকা জলমগ্ন

স্টাফ রিপোর্টার, ঝাড়গ্রাম: বুধবার (Wednesday) রাত থেকে একটানা ভারী বৃষ্টির (Rain) ফলে ঝাড়গ্রাম (Jhargram Municipality) পৌরসভার তিন নম্বর ওয়ার্ডের বেশিরভাগ এলাকা জলমগ্ন (Submerged) হয়ে পড়েছে। বেশ কিছু বাড়িতে বৃষ্টির জল ঢুকে পড়েছে । যার ফলে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন ওই এলাকার বাসিন্দারা। ওই এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ নিকাশি নালা না থাকায় বৃষ্টি হলেই বিস্তীর্ণ এলাকা জলমগ্ন হয়ে পড়ে। ওই এলাকার বাসিন্দাদের দীর্ঘদিনের দাবি জল নিষ্কাশন এর জন্য ড্রেন (drean) তৈরি করার। কিন্তু ড্রেন তৈরি না হওয়ায় সমস্যায় পড়েছেন ওই এলাকার বাসিন্দারা। তারা পৌর প্রশাসনের কাছে ওই এলাকায় জল নিষ্কাশন এর জন্য ড্রেন তৈরির দাবি জানিয়েছেন বহুবার হয় নি সুব্যবস্থা। প্রবল বৃষ্টির

আরও খবর পড়ুন: ভরা করোনার প্রকোপ কমতেই, তৃণমূল বিধায়ক ডাঃ খগেন্দ্রনাথ মাহাতর তত্ত্বাবধানে পাড়ার ছেলেরা মত্ত ক্রিকেট খেলায়

রাজ্যে জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষার ছাত্র ও অভিভাবকরা কি বললেন? কেমন ছিল পরীক্ষার অন্তরমহল!

প্রবল বৃষ্টির ফলে ঝাড়গ্রামের বিস্তীর্ণ এলাকা জলমগ্ন

গতকাল থেকে বৃষ্টির জেরে এলাকার বেশকিছু মাটির বাড়ি ভেঙে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এছাড়াও ঝাড়গ্রাম (Jhargram) পৌরসভার তিন নম্বর ওয়ার্ডের পাশাপাশি চার,পাঁচ,ছয় নম্বর ওয়ার্ডে ও বেশকিছু বাড়িতে জল ঢুকে পড়েছে। সেই সঙ্গে ঝাড়গ্রাম পৌরসভা (Jhargram Municipality) ১২,১৩, ১৭ ও ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের বেশকিছু বাড়িতে জল ঢুকে মাটির বাড়ি ভেঙে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। আবহা দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে আরও বৃষ্টি হবে নিম্নচাপের (Depression) ফলে।

আরও খবর পড়ুন: সাঁকরাইল ব্লক এর রোহিনী গ্রাম পঞ্চায়েত বিজেপির হাত ছাড়া, দখল করল তৃণমূল কংগ্রেস

যার ফলে ঝাড়গ্রাম শহরের (Jhargram City) নিচু এলাকার বাসিন্দারা চিন্তায় পড়েছেন। যদি আরো ভারী বৃষ্টি হয় বেশকিছু মাটির বাড়ি ভেঙে পড়ার পাশাপাশি বেশ কিছু এলাকা জলমগ্ন হয়ে পড়বে বলে ঝাড়গাম পৌরসভার বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দারা জানান।

পৌর এলাকা ছাড়া গোপীবল্লভপুর (Gopiballavpur) ,সাঁকরাইলে (Sankril) সুবর্ণরেখার (SubarnaRekha) পার্শবর্তী গ্রামের বাসিন্দারা আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন। এভাবে যদি বৃষ্টি হতে থাকে তাহলে যদি গালুডি (Galudhi) জলাধার বা চেন্ডেল (Chendel) জলাধার থেকে জল ছাড়ে তাহলে নদীর পার্শবর্তী গ্রামে প্লাবন আসতে পারে। অপর দিকে ডুলুং ও কংসাবতী নদীর পার্শ বর্তী গ্রামের মানুষ ও আতঙ্কে। জেলা (Jhargram District) প্রশাসনের তরফে নদীর পার্শবর্তী গ্রাম গুলির উপর বিশেষ নজর দারি চালাছেন

আরও খবর পড়ুন: এবার হাতির জন্য পাতা ফাঁদে পড়লেন এক মহিলা; মৃত্যু ঘটনাস্থলেই

চিকিৎসা করাতে এসে দুরব্যবহারের অভিযোগ, গ্রেপ্তার সিআরপিএফ

চিকিৎসা (Treatment) করাতে এসে মহিলা রোগীর সঙ্গে দুরব্যবহারের অভিযোগে কেন্দ্রীয় আধা সামরিক বাহিনীর একজনকে গ্রেপ্তার করে অাজ কোর্টে তোলা হয়। গতকাল ঝাড়গ্রাম জেলার (Jhargram District) বেলপাহাড়ি থানার (Belpahari Ps) বুড়িঝোর (Bhurijor) এলাকায় দুপুর নাগাদ সিআরপিএফ (CRPF) এর দুই জওয়ান প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ডাক্তার দেখাতে আসেন।

আরও খবর পড়ুন: নয়াগ্ৰামে যুব তৃণমূল কংগ্রেসের উদ্যোগে আয়োজিত হল রক্তদান শিবির, উপস্থিত বিধায়ক ডাঃ খগেন্দ্রনাথ মাহাতো

সেখানে চিকিৎসাধীন এক আদিবাসী মহিলার ওপর অভব্য আচরণ করেন বলে অভিযোগ। এই খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে আদিবাসী মানুষ জমায়েত হতে শুরু করে। শেষে প্রাণভয়ে সিআরপিএফের ঐ জওয়ান বাথরুমের ভেতরে ঢুকে পড়ে দরজা এঁটে দেয়। ঘটনার খবর পেয়ে বেলপাহাড়ি থানার (Belpahari Ps) আইসি বিশাল পুলিশবাহিনী নিয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হন।

আরও খবর পড়ুন: ঝাড়গ্রাম জেলা পুলিশের উদ্যোগে জঙ্গলমহলের মেয়েদের শারীরিক প্রশিক্ষণ দেওয়ার কাজ শুরু

শেষে পুলিশ ঐ জওয়ান কে গ্রেপ্তার করলে রাত দশটার পর এলাকার মানুষজন বিক্ষোভ তোলেন। অাজ ঐ জওয়ান জানান তিনি হাসপাতালে দেখাতে গেছিলেন। বাংলা পড়তে না পেরে মহিলা ওয়ার্ডে ঢুকে পড়েন। সেখানে এক মা তখন তার বাচ্চা কে দুধ খাওয়াচ্ছিলেন। এটা চোখে পড়তে সেখান থেকে সরে যান। এর পরেই ঐ মহিলা তার স্বামী কে কি সব বলেন। এবং তাকে মারধোর করা হয়। তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত ও করা হয়েছে।

টানা বৃষ্টিতে জলমগ্ন খড়্গপুর পৌরসভার বিস্তীর্ণ এলাকা

বৃহস্পতিবার টানা প্রায় ৫ ঘন্টা প্রবল বৃষ্টিতে জেরে জলমগ্ন পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার খড়গপুর পৌরসভার দেবলপুর ৫ নং ওয়ার্ডে বিস্তীর্ণ এলাকা।এলাকার স্থানীয় বাসিন্দাদের বাড়িতে ও রাস্তায় উপর দাঁড়িয়ে হাঁটুর বেশি জল।জলের তোর দেখে আতঙ্ক ছড়িয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে। দুর্বল নিকাশি ব্যবস্থা কারনে এই সমস্যা বলে জানান স্থানীয় বাসিন্দারা।দেবলপুর পৌর হাসপাতালে পিছন দিয়ে বয়ে গেছে একমাত্র নিকাশি নর্দমা।কিন্তু সেই নর্দমা কিছু স্থানীয়রা আবর্জনা ফেলে বন্ধ করে দিয়েছে।ফলে জল বাইরে বেরোতে না পারায় রাস্তার উপর দাঁড়িয়েছে এক হাঁটু জল। প্রবল বৃষ্টির

নিকাশি নালা নিয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর কে বারংবার অবগত করা হলেও বন্ধ হয়নি ময়লা ফেলা।এলাকার একমাত্র নিকাশি নর্দমা অবরুদ্ধ হয়ে এই অবস্থা।আর এর জেরে ভাঙলো স্থানীয় ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের পাঁচিল এবং মানুষের বাড়ি।আর এর জেরে ক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী।এই ঘটনার পরে স্থানীয় কাউন্সিলরকে দেখা যায়নি তবে ওয়ার্ড কমিটির এক সদস্য এসে এলাকা পরিদর্শন করে গেছে। কবে মিটবে এই সমস্যা তার কোনো মেলেনি সঠিক সদুত্তর।

RELATED ARTICLES

कोई जवाब दें

कृपया अपनी टिप्पणी दर्ज करें!
कृपया अपना नाम यहाँ दर्ज करें

spot_img

Most Popular

Recent Comments