Friday, May 31, 2024
- Advertisment -spot_img

মেডিক্যাল কলেজে ভর্তির নামে প্রতারণা চক্রের দুই মাথাকে আদালতে তুলল ঝাড়গ্রাম পুলিশ

জঙ্গলমহল বার্তা ডেস্ক, ঝাড়গ্রাম: মেডিক্যাল কলেজে (Medical College) ভর্তি করার নাম করে বারো লক্ষ টাকা প্রতারনা (Cheating) করার অভিযোগে দু জনকে গ্রেফতার (Arrested) করল পুলিশ। এদিন শুক্রবার কলকাতা (Kolkata) থেকে ধৃত দু জনকে ঝাড়গ্রামের (Jhargram) আদালতে তোলা হয়। শুভাশিষ পতি এবং নিতু রায় নামে দুজনকে আট জুন ঝাড়গ্রাম পুলিশ (Jhargram Police) কলকাতা পুলিশের (Kolkata Police) সহযোগিতায় কলকাতা (Kolkata) থেকে গ্রেফতার করে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃত ওই পুরুষ ও মহিলার কাছ থেকে দুটি ল্যাপটপ (Laptop), বেশ কয়েকটি ফোন (Mobile Phone) এবং বেশ কিছু নথি পত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, ঝাড়গ্রাম শহরের (Jhargram City) বাসিন্দা অর্নব ঘোষ দাস ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে ঝাড়গ্রাম (Jhargram) সাইবার ক্রাইমে তাকে মেডিক্যালে কলেজে (Medical College) ভর্তির নাম করে বারো লক্ষ টাকা প্রতারনা করা হয়েছে বলে অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযেগের ভিত্তিতে পুলিশ দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে অর্নব ঘোষ (Arnab Ghosh) দাসের বাবা করোনা আক্রন্ত হয়েছিলেন কয়েক মাস আগে। সেই সময় অভিযুক্ত নিজেকে শুভাশিস আগরওয়াল পরিচয় দিয়ে ফোন করেছিল। অর্নবের মা ফোন ধরলে তাকে বলে ছেলেকে মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করে দিতে পারবে সে। পরে ঝাড়গ্রামের (Jhargram) বাড়িতে সুভাশিস একবার আসে।

মেডিক্যাল কলেজে ভর্তির নামে প্রতারণা চক্রের দুই মাথাকে আদালতে তুলল ঝাড়গ্রাম পুলিশ

Read More – ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান নিয়ে কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

অবিরাম বর্ষণে বিপর্যস্ত জনজীবন, প্লাবিত ঝাড়গ্রামের বিস্তীর্ণ এলাকা, যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন!

দুই কিশোরের চেষ্টায় মেদিনীপুরের ধর্মা এলাকা থেকে বিলুপ্তপ্রায় একটি কচ্ছপ উদ্ধার

বারো লক্ষ টাকার বিনিময়ে ভর্তি করার জন্য লাগবে বলে জানায়। এরপর অন লাইনে সেই টাকা অর্নবের পরিবার দেয়। অর্নবকে বাঁকুড়া মেডিক্যাল কলেজে (Bankura Medical College) আসতে বলে। সেখানে সারাদিন অপেক্ষা করার পরেও কারো দেখা মেলেনি। তারপর থেকে ওই ব্যক্তির ফোন সুইচ অফ হয়ে যায়।তখনই তারা বুঝতে পারেন প্রতারিত হয়েছেন। সাইবার ক্রাইমে অভিযোগ দায়ের করেন অর্নব। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই পরিবারটির কাছে আরো ষাট লক্ষ টাকা চাওয়া হয়েছিল। এদের সাথে বড় কোন চক্র রয়েছে কিনা তা নিয়ে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে

RELATED ARTICLES

कोई जवाब दें

कृपया अपनी टिप्पणी दर्ज करें!
कृपया अपना नाम यहाँ दर्ज करें

spot_img

Most Popular

Recent Comments