Friday, May 31, 2024
- Advertisment -spot_img

পাহাড়ের উপরে উঠে চলছে অনলাইনের মাধ্যমে পড়াশোনা

পাহাড়ের উপরে উঠে চলছে অনলাইনের মাধ্যমে পড়াশোনা

নিজস্ব প্রতিবেদন, ঝাড়গ্রাম: ইচ্ছে থাকলে উপায় হয়। এবার এই ইচ্ছেকেই কাজে লাগিয়ে আরও একধাপ এগিয়ে গেল ঝাড়গ্রাম (JHARGRAM) জেলার বেলপাহাড়ি (BELPAHARI) এলাকার পড়ুয়ারা । করোনা পরিস্থিতির জন্য স্কুল, কলেজ সবই দীর্ঘ দিন ধরে বন্ধ। ধীরে ধীরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক  হলেও এখনও পর্যন্ত খোলেনি কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানই। ফলে যেটুকু হচ্ছে সবটাই ফোনের মাধ্যমে। পড়াশোনার প্রতি তাঁদের অদম্য ইচ্ছাই ক্রমশ জুগিয়ে চলেছে তাঁদের শক্তি। তাই পড়াশোনার জন্য এখন একমাত্র ভরসা ওই মোবাইল।  কিন্তু কত জনের কাছেই বা রয়েছে অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল?  হাতে গোনা গুটিকয়েকের কাছে থাকলেও তাতে সমাধান কিছুই হয় না। কারণ গ্রামের অনেকটা ভিতরে ঘর তাঁদের একইসঙ্গে এলাকায় নেটওয়ার্কের বড় সমস্যা। তাই হাসাডুমরি পাহাড়ের মাথায় উঠেই চলছে অনলাইনে পড়াশোনা। একমাত্র সেখানেই গেলেই পাওয়া যায় নেটওয়ার্ক এমনটাই দাবি খুদে পড়ুয়াদের। আমলাশোল (AMLASHOL),কাঁকড়াঝোড় (KALRAJOR), কেন্দাপাড়া (KENDAPARA), শুষনিজোবি (SUSNIJOBI), বুড়িঝোর (BURIJOR) সহ বিভিন্ন গ্রামের ছাত্ররাই এভাবেই চালাচ্ছে পড়াশোনা। পাহাড়, জঙ্গল ঘেরা প্রত্যন্ত এই অঞ্চলের ছাত্র ছাত্রীদের বাড়ি  গ্রামের শেষ প্রান্তে। তাই এভাবেই দীর্ঘদিন ধরেই চালাতে হচ্ছে পড়াশোনা। এভাবেই চলছে পঠনপাঠন। এমনটাই জানান এলাকার প্রাইভেট টিউটর সঞ্জয় কুমার পাল, কলেজ ছাত্র গৌরাঙ্গ মুর্মু সহ আরও অনেকেই। এলাকার ছাত্রছাত্রী থেকে শুরু করে গ্রামবাসীদের দাবি, অন্তত মোবাইলে টাওয়ার ঠিক মত থাকলে অনলাইনে (ONLINE) পড়াশোনার কাজটা তাঁরা বাড়িতে থেকেই করতে পারবে। তাহলে তাঁদের আর চড়া রোদে কিংবা বৃষ্টি মাথায় নিয়ে যেতে হবে না পাহাড়ের মাথায়। তাই এ ব্যাপারে সরকারের কাছে তাঁদের আবেদন  তাঁরা যেন এই বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেন।

_______

Studying online is going up the hill in Belpahari

Own correspondent, Jhargram: If there is a way. This time the students of Belpahari area of ​​Jhargram district went one step further by using this wish. Schools and colleges have all been closed for a long time due to the Corona situation. Gradually the situation became normal but no educational institution has opened yet. As a result, everything is happening through the phone. Their indomitable desire for education is gradually increasing their strength. So now the only hope for studying is that mobile. But how many people have an Android mobile? Even if there are only a few in hand, there is no solution. Because the houses inside the village are a big problem in their simultaneous area network. So online study is going on at the top of Hasadumri hill. The only way to get the network is to go there. Students from different villages including AMLASHOL, KALRAJOR, KENDAPARA, SUSNIJOBI, BURIJOR are conducting their studies in this way. The home of the students in this remote area surrounded by hills and forests is at the far end of the village. So this is the way to study for a long time. This is how reading is going on. This was stated by Sanjay Kumar Pal, a private tutor in the area, Gaurang Murmu, a college student and many others. Starting from the students of the area, the villagers claim that at least if the mobile tower is in good condition, they will be able to study online from home. Then they will not have to go to the top of the mountain in the hot sun or rain. Therefore, their appeal to the government in this regard is that they should take necessary steps in this regard.

RELATED ARTICLES

कोई जवाब दें

कृपया अपनी टिप्पणी दर्ज करें!
कृपया अपना नाम यहाँ दर्ज करें

spot_img

Most Popular

Recent Comments